LOADING

Type to search

লেবাননের বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ: জাতীয় শোক ঘোষণা

আন্তর্জাতিক

লেবাননের বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ: জাতীয় শোক ঘোষণা

Share

ডেস্ক রিপোর্টঃ  ভয়াবহ বিস্ফোরণের লেবাননের রাজধানী বৈরুতে নিহত হয়েছে অন্তত ৭৮জন। আহত হয়েছে ৪ হাজারের বেশি। ধ্বংসস্তুপের নিচে এখনো অনেকে আটকে থাকায় নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ভয়াবহ এ বিস্ফোরণের কারণ এখনো স্পষ্ট নয়। দেশটিতে তিনদিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে, এই ঘটনায় ওই বন্দরে থাকা বাংলাদেশ নৌবাহিনী বিএনএস বিজয়ের ১৯ সদস্য আহত হয়েছে; ৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সিনেমার দৃশ্যকেও হার মানায় লেবাননের বৈরুতে এ বিস্ফোরণের দৃশ্য।

পরপর দুটি বিস্ফোরণে মুহূর্তেই ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয় বৈরুত বন্দর। ধসে পড়ে আশপাশের বেশ কিছু ভবন। বিস্ফোরণ স্থলের ১০ কিলোমিটার দূরের বাড়িঘরের কাঁচও ভেঙ্গে পড়ে। প্রচন্ড ধোয়ায় ছেড়ে যায় গোটা এলাকা। বিস্ফোরণের মাত্রা এতোটাই প্রকোট ছিল যে কয়েক মাইল দূরের এলাকাও কেঁপে ওঠে। ধ্বংসস্তুপের নিচে এখনো আটকে আছে বহু মানুষ।

অনেকেই পরিবারের কারো খোঁজ পায়নি এখনো। জানেনা বেঁচে আছে কিনা। হাসপাতালগুলোতে তিল ধারণের ঠাই নেই। হাজার হাজার আহতের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ভয়াবহ এ বিস্ফোরণের কারণ এখনো স্পষ্ট নয়। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর দাবি, বন্দরের একটি গুদামে ছয় বছর ধরে মজুদ ছিল ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট।

ঘটনার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকেছেন এবং দেশ জুড়ে তিনদিনের জাতীয় শোক ঘোষণা দিয়েছেন। ঘটনার সাথে জড়িতদের কঠিন শাস্তির হুশিয়ারী দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব বলেন, জাতীয় বিপর্যয়ে গোটা লেবানন। যা হয়েছে ভাষায় বর্নণা সম্ভব নয়। তবে এতোটুকু আশ্বাস্থ করছি, যারা এর সাথে জড়িত সবাইকে কঠিন শাস্তির আওতায় আনা হবে।

আর এ বিস্ফোরণকে দুর্ঘটনা নয় বড় হামলা বলছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। দেশটি চাইলে সহায়তার আহ্বান জানান তিনি।

স্পর্শকাতর এক সময়ে এমন বিস্ফোরণ ঘটলো দেশটিতে।  ২০০৫ সালে সাবেক প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরি হত্যার মামলার রায় ঘোষনা হবে চলতি সপ্তাহেই। এর ঠিক কয়েকদিন আগে ঘটা এ বিস্ফোরন, প্রশ্ন তুলছে।

Tags:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *