LOADING

Type to search

এক বছর পেরিয়ে গেল তাসলিমার হত্যার বিচার পেল না অভিযোগ পরিবারের

জাতীয়

এক বছর পেরিয়ে গেল তাসলিমার হত্যার বিচার পেল না অভিযোগ পরিবারের

Share

কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ উখিয়া উপজেলা টাই পালং এলাকায় তাসলিমা কে হত্যা করেছিল তার সামি, রোহিঙ্গা নুরুল আলম,আজ এক বছর হয়ে গেলো কিন্তু মামলাটির কোনো অগ্রগতি হলো না। এ বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে বাংলাদেশ সাংবাদিক ঐক্য ফোরাম (BJUF) কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ ও বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ সংগঠন ( BSKS) কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংগঠনের এর পক্ষথেকে এই হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। এবং উখিয়া উপজেলা পুলিশের সুদৃষ্টি কামনা করছেন। উখিয়া গৃহবধু হত্যার নতুন রহস্য উখিয়া স্বামীর ঘরে গলায় ফাস লাগিয়ে আত্মহত্যা নামে আপপ্রচার চালিয়ে দেওয়া ঘটনায় নতুন চাঞকের তথ্য বেরিয়ে আসছে ঘটনার দিন স্বামী স্ত্রী দুই জনেই নিকট এক আত্তীয়ের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা স্বামী স্ত্রীকে বলে তুমি যাও আমি আসছি।কিন্তু স্ত্রী তসলিমা স্বামীকে না দেখে বাড়ীতে ফিরে আসে, বাড়ীতে এসেই দেখতে পায়, স্বামী অপর এক মেয়ের সাথে শোয়ার ঘরে অবস্থান করছেন।তাসলিমা তা দেখে ফেলে এবং বিষয় প্রতিবাদ করায়। স্তামী নুরুল আমিন স্ত্রী তসলিমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে তলপেটে লাথি মেরে আঘাত করে এবং কিল, ঘুষির এক পর্যায়ে স্ত্রী তসলিমা মাটিতে লুটিয়ে পড়ে বেহুস হয়ে যায়। গত ১৪ মার্চ রাতে গৃহবধূ তসলিমা আক্তারের শোয়ার ঘরে শ্বশুর বাড়ির লোকজন মনে করেছেন স্বামী-স্ত্রী ইয়ার্কির ছলে বেহুসের নাটক করেছেন। ঘণ্টা খানেক পরে এসে – মৃত পেয়ে তাড়া তাড়ি করে গলায় কাপড় পেঁচিয়ে ঘরের বিমের সাথে ঝুলিয়ে রাখে এবং চিতকার করেন। এসময় পাড়া পাড়শির লোকজন এসে নীচে নামিয়ে উখিয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়।হাসপাতালে তসলিমার লাশ রেখেই স্বামী নুরুল আমিন এর পরিবার তারা সটকে পড়ে, কতব্যরত ডাক্তার মিসবাহ উদ্দিন বলেন দ। ১৫ ই মার্চ কয়েকজন লোক এ মহিলাকে নিয়ে এসে হাসপাতালে রেখে চলে যায়।দেখা যায়,মহিলাটির অনেক আগেই মৃত্যু হয়েছে এসময়,মতৃ মহিলার কোন আত্মী স্বজনকে খোজা খুজি করে পাওয়া যায়নি নিহত তাসলিমা আক্তার(২২)- উখিয়া উপজেলার রন্তাপালং ইউনিয়নের উওর মাধ্যমে ভালোকিয়া সর্দার পাড়া গ্রামে সোদি প্রবাসী ছুরুত আলমের কন্যা। বিগত ৮ বছর আগে একই উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নে উওর টাইপালং গ্রামের শুটকি ব্যাবসায়ী নুর মোহাম্মদের ছেলে নুরুল আমিনের সাথে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ৬ বছরের ছেলে আবির এবং দেড় বছরের মেয়ে রুসমিন নামের একটি মেয়ে রয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে একটি ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে কেন তাসলিমার বিচার পাচ্ছেনা??????

Tags:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *